শাহরাস্তিতে স্ত্রীকে বাবার বাড়ি থেকে আনতে না পেরে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

শাহরাস্তিতে স্ত্রীকে বাবার বাড়ি থেকে আনতে না পেরে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা। হোটেল শ্রমিকের গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা ৷ মঙ্গলবার ৮ সেপ্টেম্বর রাতে উপজেলার টামটা দক্ষিণ ইউনিয়নের টামটা গ্রামের পাটোয়ারী বাড়িতে এমরান হোসেন (৩৫) নামের এ যুবকের আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে৷

পুলিশ জানায়, ওই বাড়ির আ. ছমেদ পাটোয়ারীর বড় ছেলে এমরান একজন সহজ সরল ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী প্রকৃতির লোক ছিল৷ সে উপজেলার ঠাকুর বাজারে একটি রেস্তোরাঁয় শ্রমিক হিসেবে কাজ করতো৷ ২ বছর আগে একই উপজেলার নিজমেহার রাঢ়ী বাড়ির বিল্লাল হোসেনের কন্যা শান্তা আক্তারের সাথে তার বিবাহ হয়৷

সাংসারিক জীবনে তাদের বনিবনা না হওয়ায় ১বছর পূর্বে শান্তা পিত্রালয়ে চলে যায়৷ ঘটনার আগে ৩ দিন ভিকটিম বাড়ি ফেরেনি৷ ওইদিন রাত সাড়ে ৯ টার সময় বাড়ি এসে ১০ টার দিকে নিজ কক্ষে প্রবেশ করে৷ রাত ১২ টার সময় তার মা নূরজাহান বেগম প্রকৃতির ডাকে ঘুম থেকে উঠে ভিকটিমকে নিজ ঘরের আড়ার সাথে ফাঁস দেয়া অবস্থায় দেখতে পায়৷

খবর পেয়ে রাতেই শাহরাস্তি থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আবদুল মান্নান ও উপ-পরিদর্শক মো. ইদ্রিস মিয়া লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে৷ ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো. আ. রহিম জানান, ভিকটিমের স্ত্রী পিত্রালয়ে চলে যাওয়ার পর হতে সে তার স্ত্রীকে ফিরিয়ে এনে দিতে বিভিন্ন লোকজনকে জ্বালাতন করতো৷

ভিকটিমের শ্বশুর মো. বিল্লাল হোসেন জানান, বনিবনা না হওয়ায় ১বছর আগেই মেয়েকে ওই বাড়ি হতে নিয়ে আসি৷ সে সময়ে সামাজিক ভাবে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত হলেও ছেলের পরিবারের লোকজন এগিয়ে না আসায় বিষয়টি আনুষ্ঠানিক ভাবে সমাধান হয় নি৷ এ ব্যপারে শাহরাস্তি থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে৷

জনপ্রিয় খবর

সর্বশেষ খবর

দিনপঞ্জিকা

September 2020
M T W T F S S
« Aug    
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930  

আর্কাইভস