হাজীগঞ্জে সম্পত্তিগত বিরোধে সন্ত্রাসী হামলায় মাও. আবু সুফিয়ানসহ আহত ৪

মো. সাইফুল ইসলাম :
হাজীগঞ্জ উপজেলায় সম্পত্তিগত বিরোধে সন্ত্রাসী হামলায় মসজিদের মোতওয়াল্লী ও বদরপুর দরবারের প্রতিষ্ঠাতা শায়খ মাওঃ আবু সুফিয়ান আল ক্বাদেরীসহ অন্তত ৪ জন আহত হয়েছেন। ১ আগস্ট বৃহস্পতিবার হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার বদরপুর দরবার শরীফ কমপ্লেঙ্ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে মাও. আবু সুফিয়ান আল ক্বাদেরীকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জানা যায়, দরবার শরীফ কমপ্লেঙ্ এলাকায় একটি মসজিদের সম্পত্তির রায় পান মাওঃ আবু সুফিয়ান আল ক্বাদেরী। রায়ের কপি নিয়ে তিনি মিস্ত্রীকে দিয়ে কাজ করাতে গেলে স্থানীয় একদল চিহ্নিত সন্ত্রাসী তাকেসহ মিস্ত্রী, মাদ্রাসার ছাত্র ও শিক্ষকের উপর হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে পুলিশ গিয়ে ১ জনকে আটকসহ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

মাও, সুফিয়ান ছাড়া অন্য আহতরা হলেন রাজমিস্ত্রী শাহিদুর রহমান (২৭), এমএএস কাদেরীয়া চিশতীয়া হোসাইনীয়া সুন্নীয়া দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক আঃ সাত্তার মৃধা (৬০) এবং মাদ্রাসার ছাত্র দিদার হোসেন (১৬)। এরা বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মাওঃ আবু সুফিয়ান খানের ছেলে মো. রহমত উল্যাহ্।

জানা গেছে, মসজিদ নির্মাণ কাজে বাধা সৃষ্টি করায় মাও. আবু সুফিয়ান খান আবেদী আল কাদেরী ওই এলাকার শাহিনুর (শাহিন) ও সিরাজুল ইসলামসহ ১৭ জনকে বিবাদী করে বিজ্ঞ হাজীগঞ্জ জজ আদালতে ইতিপূর্বে একটি অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে দেওয়ানী মামলা (নং- ১১৭/২০১৯) করেন। গত ১৫ জুলাই বিবাদীদের বিরুদ্ধে দোতরফা সূত্রে মঞ্জুর এবং মামলার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বিবাদীদের নালিশী ভূমি হতে বে-দখল বারিত করা মর্মে একটি আদেশ জারি করে আদালত।

উল্লেখিত আদেশ জারির পর গত ২৮ জুলাই পুনরায় মসজিদ নির্মাণ শুরু করা হলে বিবাদীরা বাধা প্রদান করেন। এরপর গত ৩০ জুলাই পুলিশ সুপার বরাবর একটি লিখিত আবেদন করেন মাওঃ আবু সুফিয়ান। আবেদনের পর পহেলা আগস্ট (বৃহস্পতিবার) নির্মাণ কাজ শুরু করলে আবারো বাধা প্রদান করেন বিবাদীরা। বিষয়টি থানায় অবহিত করা হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে একজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। পুলিশ চলে আসার পর বিবাদী সিরাজুল ইসলাম ও নুরুল আমিনসহ অন্য বিবাদীরা মাওঃ আবু সুফিয়ানসহ রাজমিস্ত্রী এবং মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এ সময় ঘটনাস্থল থেকে বিবাদীরা পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে মাও. আবু সুফিয়ান খান আবেদী আল কাদেরী বলেন, আদালতের রায়কে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে বিবাদীরা হামলা চালায় এবং মসজিদ নির্মাণ কাজে বাধা সৃষ্টি করে। এ বিষয়ে আইনি পদক্ষেপ নিবেন বলে তিনি জানান। এ দিকে বিবাদী সিরাজুল ইসলাম ও নুরুল আমিনকে ঘটনাস্থলে না পাওয়ায় তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

থানা উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো, মোশারফ হোসেন জানান, এ ঘটনায় আরিফ হোসেন নামের একজনকে আটক করা হয়েছে। পরবর্তীতে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।

জনপ্রিয় খবর

সর্বশেষ খবর

দিনপঞ্জিকা

September 2021
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930  

আর্কাইভস